ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মুখে দলীয় প্রার্থীরা কোনঠাসা

Jamal Jamal

Khan

প্রকাশিত: ৬:৩১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২১

মো. আব্দুল হালিমঃ  ‘ফুলবাড়িয়ার মাটি, নৌকার ঘাটি’, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে স্লোগানটি প্রায় সম্পন্ন উল্টেগেছে। বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারনে দলীয় প্রার্থীরা ভোটের মাঠে একেবারে কোনঠাসা অবস্থানে রয়েছে। শেষ পর্যন্ত বিদ্রোহী প্রার্থীরা সরে না দাঁড়ালে দলীয় প্রার্থীদের ভরাডুবি হবে বলে মনে করছেন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। বিএনপি দলীয় ভাবে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করলেও দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে বিএনপির ১৭ জন নেতা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
উপজেলায় ৭৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১৩ টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের দলীয় প্রার্থীর বিপরিতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামীলীগ ও সাবেক ছাত্রলীগের ১৬ জন নেতা। ভোটের দিন যত ঘনিয়ে আসছে আওয়ামীলীগের দলীয় ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মাঝে হামলা-মামলার ঘটনাও বাড়ছে। এনায়েতপুর ও বাকতা, কালাদহ, নাওগাঁও ইউনিয়নে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পৃথক মামলা হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফুলবাড়িয়া, পুটিজানা, কুশমাইল, কালাদহ, বালিয়ান, দেওখোলা, বাক্তা, রাঙ্গামাটিয়া, এনায়েতপুর, নাওগাও, রাধাকানাই, আছিম-পাটুলী ও ভবানীপুর ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
রিটানিং কর্মকর্তারা প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন। প্রতীক নিতে এসে প্রায় সব প্রার্থী নির্বাচন আচরণ বিধিলংঘন করেছে। শত শত মোটরসাইকেল, ভ্যান, রিক্সা, ট্রাকে করে বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে হাজার হাজার লোকের মিছিল নিয়ে প্রতীক নিতে আসেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। এতে করে পৌর শহরে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়ে সাধরণ মানুষের চরম ভুগান্তির মধ্যে পড়েছে।
নাওগাঁও ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কাউন্সিলর মো. মোজাম্মেল হোসেন, বিএনপি নেতা সাবেক মেম্বার নুরুল ইসলাম। পুটিজানা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. ময়েজ উদ্দিন তরফদার, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন সাবেক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আলীম আব্দুল্লাহ। কুশমাইল ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা মো. শামছুল হক, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল বাতেন পুলু, সাবেক উপজেলা শ্রমিক দলের সভাপতি মো. সেলিম মিয়া। বালিয়ান ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী মোছা. হাজেরা খাতুন, সাবেক উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক শেখ মো. মিজানুর রহমান, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ নাজমুল হুদা। দেওখোলা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. তাজুল ইসলাম বাবলু, বিদ্রোহী প্রাথী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জয়নাল আবেদিন, উপজেলা স্বেচ্ছা সেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক নুরে আলম উজ্জ্বল। ফুলবাড়িয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী সাবেক উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. রুহুল আমীন, বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা জয়নাল আবেদিন বাদল, মৎস্যজীবি লীগ নেতা মো. আতাহার আলী, আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল হক। বাকতা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নাজমুল হক সোহেল, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা কৃষক লীগের সহ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. ফজলুল হক মাখান, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ আতিকুর রহমান খান। রাঙ্গামাটিয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মির্জা মো. কামরুজ্জামান, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা শাহজাহান সিরাজ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম চৌধুরী। উপজেলা বিএনপির সাবেক কোষাধক্ষ মো. মফিজ উদ্দিন আকন্দ। এনায়েতপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ বুলবুল হোসেন, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন সাবেক ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আ. সালাম, সাবেক ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আ.সা.মু আব্দুর রাজ্জাক তালুকদার, ইউনিয়ন বিএনপির সহ সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান মো. কবীর হোসেন তালুকদার, বিএনপির নেতা আজিজুল হক। কালাদহ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. ইমান আলী, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে সাবেক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম মাস্টার, আওয়ামীলীগ নেতা মো. নজরুল ইসলাম, বিএনপি নেতা মো.ফজলুল হক চৌধুরী, মো. ওয়াহিদুল ইসলাম চৌধুরী। রাধাকানাই ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের কোষাধক্ষ মো. গোলাম কিবরিয়া তরফদার, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সারওয়ার আলম। আছিম পাটুলি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা সাইফুজ্জামান সাইফুল, ইউনিয়ন যুবদলের সহ সভাপতি মো. ইমরুল কায়েস। ভবানীপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা মো. জবান আলী সরকার,বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মো. আজহারুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা ডা. কামরুজ্জামান, উপজেলা ছাত্রদলের সহ সহসভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান শাহিনুর মল্লিক জীবন, বিএনপি নেতা সাবেক চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান ও আনোয়ার হোসেন।
৩ নং কুশমাইল ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল বাতেন পুলু (চশমা) তার বক্তব্য নেওয়ার জন্য মোবাইল করলে তিনি বলেন, আমি একটি গুরুত্বপূর্ণ মিটিংয়ে আছি ,পরে কথা বলবো।
আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী মো. শামছুল হক জানান, বিদ্রোহী প্রার্থীদের জন্য আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থীদের অনেক ক্ষতি হবে। দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে যারা নির্বাচন করছেন, দল তাঁদের বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নিবেন।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আ. মালেক সরকার বলেন, যোগ্য প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে এবং শেখ হাসিনার যে উন্নয়ন করছেন জনগণ নৌকা ছাড়া অন্য কোন প্রতীকে ভোট দিবেনা। দলীয় প্রতীকের বিরুদ্ধে গিয়ে যারা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রার্থী হয়েছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপি যুগ্ম আহবায়ক আখতারুল আলম ফারুক বলেন, যারা দলের সিদ্ধান্ত না মেনে ইউপি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।